• Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
  • Human Rights and Peace for Bangladesh (HRPB)
HC Directed to Stop all Further Earth Filling, Encroachment within the area of Arial Beel, Munshigong

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

ঢাকার পাশে মুন্সীগঞ্জে অবস্থিত আড়িয়াল বিল দখল/মাটি ভরাট/নিমার্ণ কাজ বন্ধ নিশ্চিত করতে মুন্সীগঞ্জের প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট

ঢাকার নিকটতম মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগরে অবস্থিত সর্ববৃহৎ জলাশয় “আড়িয়াল বিল” দখল করে বিভিন্ন ব্যক্তি ও হাউজিং কোম্পানী কতৃর্ক মাটি ভরাট ও দখলের সংবাদ মিডিয়ায় প্রকাশিত হলে জনস্বার্থে হিউম্যান রাইটস এন্ড পিস ফর বাংলাদেশ (HRPB) গত ১৩.০৮.২০২৩ইং তারিখে একটি রীট পিটিশন দায়ের করে। উক্ত রীট পিটিশনে আড়িয়াল বিল সংরক্ষণের নির্দেশনা এবং সমস্ত দখল/মাটি ভরাট/বালু ভরাট অপসারণের নির্দেশনা চাওয়া হয়।

আজ বিচারপতি জে. বি. এম. হাসান এবং বিচারপতি রাজিক আল জলিল এর আদালতে আজ রীট মামলাটি শুনানী হয়। শুনানী শেষে আদালত মুন্সীগঞ্জ জেলার শ্রীনগরে অবস্থিত সর্ববৃহৎ জলাশয় “আড়িয়াল বিল” সুরক্ষায় পদক্ষেপ গ্রহণে বিবাদীদের নিস্ত্রিয়তা কেন অবৈধ ঘোষণা করা হবে না এবং উক্ত বিল হতে অবৈধ মাটি ভরাট/স্থাপনা যা ইতিমধ্যে তৈরি করা হয়েছে তা অপসারনের নিদের্শ এবং আড়িয়াল বিল জলাশয়টি মূল অবস্থান অনুযায়ী সংরক্ষণের জন্য কেন নিদের্শ দেয়া হবে না তা জানাতে ৪ সপ্তাহের রুল জারি করে হাইকোর্ট।

শুনানীতে বাদী পক্ষের কৌশুলি সিনিয়র এডভোকেট মনজিল মোরসেদ বলেন, ঢাকা শহরের বন্যা প্রতিরোধে অন্যতম ভূমিকা রাখে আড়িয়াল বিল এবং জলাশয় সংরক্ষণ আইন, ২০০০, পরিবেশ সংরক্ষন আইন, ১৯৯৫ পানি আইন, ২০১৩ এর বিধান অনুসারে জলাশয় ভরাট শাস্তিযোগ্য অপরাধ। ভরাটকারীদের বিরুদ্ধে জলাধার আইনের ৮ ধারায় ৫ বছরের কারাদন্ডের বিধান রয়েছে কিন্তু স্থানীয় প্রশাসন ভরাটকারীদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করছে না । তাদের নিষ্ক্রিয়তার কারণে দিনে দিনে গুরত্বপূর্ণ জলাশয়টি ভরাট হয়ে যাচ্ছে।

আদালত এক অন্তবর্তীকালীন আদেশে পূর্ত সচিব, জাতীয় গৃহায়ণ কৃর্তপক্ষ চেয়ারম্যানসহ মোট ৪ জন কে আড়িয়াল বিলের ২০১০ ও ২০২২ সালের প্রকৃত স্যাটেলাইট এরিয়াল ম্যাপ দাখিলের নির্দেশ দেন যাতে প্রকৃত চিত্র পাওয়া যাবে। অপর এক আদেশে আদালত মুন্সীগঞ্জের জেলা প্রশাসক, পুলিশ সু্পার, শ্রীনগর এর UNO এবং পরিবেশের এনফোর্সমেন্ট ডাইরেক্টর কে উক্ত আড়িয়াল বিলে আর যেন কেহ মাটি ভরাট, নিমার্ণ কাজ/দখল কার্যক্রম করতে না পারে তা নিশ্চিত করতে বলেছেন এবং তাদেরকে ৩ মাসের মধ্যে আদালতে compliance রিপোর্ট দাখিল করতে বলেছেন।

রীট পিটিশনার হলেন হিউম্যান রাইটস এন্ড ফর বাংলাদেশ (HRPB) পক্ষে এডভোকেট মোঃ ছারওয়ার আহাদ চৌধুরী, এডভোকেট এখলাস উদ্দিন ভূঁইয়া এবং এডভোকেট সঞ্জয় মন্ডল। বিবাদীরা হলেন পরিবেশ, বন ও জলাবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় সচিব, গৃহায়ন ও গর্ণপূত মন্ত্রণালয় সচিব, রাজউক চেয়ারম্যান, জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ চেয়ারম্যান, পরিবেশ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, পরিবেশ অধিদপ্তরের পরিচালক (এনফোর্সমেন্ট), জেলা প্রশাসক মুন্সীগঞ্জ, পুলিশ সুপার মুন্সীগঞ্জ, উপজেলা নির্বাহী অফিসার শ্রীনগর, অফিসার ইনচার্জ শ্রীনগর সহ মোট ১০ জন।

বাদী পক্ষে শুনানী করেন সিনিয়র এডভোকেট মনজিল মোরসেদ, সরকার পক্ষে ছিলেন DAG কাজী মাইনুল হাসান।

 

বার্তা প্রেরক

মনজিল মোরসেদ

সিনিয়র এডভোকেট